নীড় / স্বাস্থ্য / খাবারের তালিকায় টমেটো রাখুন এবং অনেক রোগ থেকে রক্ষা পান.!
টমেটো

খাবারের তালিকায় টমেটো রাখুন এবং অনেক রোগ থেকে রক্ষা পান.!

টমেটোর পরিচিতি…

টমেটো সাধারণত আমাদের নিত্যদিনের খাদ্যতালিকায় সুস্বাদু একটি সবজি। আমাদের দৈনন্দিন জীবনে রান্নায় এবং সালাদে টমেটো ছাড়া কল্পনাই করা যায় না । শুধু রান্নাই নয় এই টমেটো এর খুব গুরুত্বপূর্ণ কিছু উপকারিতা রয়েছে, যা আমাদের শরীরের নানা রকম রোগ-ব্যাধি থেকে মুক্ত রাখতে সাহায্য করে থাকে।টমেটো সাধারণত শীতকালীন সবজি হলেও এটা এখন সারা বছরই বাজারে দেখা যায়।

টমাটো আমাদের দেহের বিভিন্ন ধরনের রোগের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে থাকে।শুধু তাই নয় টমেটো ক্যান্সার প্রতিরোধে অত্যন্ত সহায়ক একটা সবজি, সেটা আমরা কমবেশি সকলেই জানি। তবে শুধুই কি একটি গুণ টমাটোর? জেনে নিন আপনি টমাটো খাওয়ার সুফল।

টমেটোর পুষ্টিগুণ…

আমাদের শরীরের রোগ সারাতে শাকসব্জি ও ফলের বিকল্প কিছু হতে পারে না তা সর্বজনবিদিত। আর এরমধ্যে অনেক বড় একটা কার্যকরী ভূমিকা পালন করে থাকে টমাটো। তাই অনেক সময় চিকিৎসকরা বেশি করে টমেটো খেতে পরামর্শ দিয়ে থাকেন। আবার চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন টমাটোর মধ্যে থাকা প্রচুর পরিমাণে লিউকোপেন যা আপনার কিডনিকে পুরোপুরি সুস্থ রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।তবে টমেটো বিশেষত মহিলাদের ক্ষেত্রে এর উপকারিতা পুরুষদের তুলনায় বেশী কার্যকরী। তবে একটা কথা  শুধুমাত্র টমাটোতেই যে লিউকোপেন রয়েছে তাই নয়, চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন তরমুজ, পেঁপে এবং আঙুরেও রয়েছে প্রচুর পরিমানে লিউকোপেন।এজন্য চিনের ওহিও-র গবেষকদের মতে, প্রাপ্ত বয়স্ক মহিলাদের প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় লিউকোপেন যুক্ত ফল বা শাকসব্জি থাকা খুব দরকার।

যে ১৫ কি উপকারিতার জন্য দৈনন্দিন আপনার খাদ্য তালিকায় টমেটো রাখবেন…

চিনে ৩৮৩ জন মহিলার ওপর পরীক্ষা করে চিকিৎসকেরা তাদের এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন। পরীক্ষা শেষে দেখা গেছে, যে সমস্ত মহিলারা প্রতিদিন খুব বেশী পরিমানে লিউকোপেন যুক্ত শাকসব্জি বা ফল খেয়ে থাকেন তাদের কিডনির ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি অন্য মহিলাদের তুলনায় ৪৫ শতাংশ কমে যায়। তবে সবথেকে মজার কথা হল এই লিউকোপেন এর পরিমাণ অন্য শাকসবজির তুলনায় টমাটোতে অনেক বেশি থাকে। আবার চিকিৎসকেরা আশ্বস্ত করেছেন যে সমস্ত মহিলারা কাঁচা টমাটো খেতে পছন্দ করেন না তাঁরা খাবারে কাঁচা টমাটো না রেখে টমাটোর সস ব্যবহার করতে পারেন। সাম্প্রতিক আমেরিকান সোস্যাইটি ফর ক্লিনিক্যাল অনকোলজির বার্ষিক একটা সভায় টমাটোর এই কার্যকারিতা জনসমক্ষে তুলে ধরা হয়েছে।

আমরা সবাই টমাটোকে সবজি বা সালাদ হিসাবে চিনি। তবে উদ্ভিদ বিজ্ঞানের দৃষ্টিতে টমেটো একটি ফল হলেও, সবজি হিসেবে সারা বিশ্বে পরিচিত।টমাটোতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-এ, ভিটামিন-সি, আমিষ, ক্যালসিয়াম সহ আরও অনেক ভিটামিনে পরিপূর্ণ।আসুন আজ আপনাদের বলবো তো এবার চলুন দেখে নেয়া যাক টমাটোর কিছু উপকারিতা, যার জন্য আমাদেরকে টমেটো খেতে হবে।

১. টমেটো ক্যানসার প্রতিরোধকঃ একটা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হল, ক্যানসার কোষ বিনষ্টকারী প্রাকৃতিক অ্যানটি-অক্সিডেনট এর প্রাকৃতিক প্রধান উৎস হল টমেটো। তাই আপনি কোন প্রকার সন্ধেহ ছাড়াই ক্যান্সারের ঝুঁকি রোধে খেতে পারেন টম্যাটো।

২. রক্তকে স্বাভাবিক রাখতে টমেটো খানঃ শুধুমাত্র একটি টমাটো আপনাকে দিতে পারে দৈনিক প্রয়োজনের ৪০ ভাগ ভিটামিন সি। টমাটোর কিছু বিশেষ উপাদান রয়েছে ভিটামিন এ, পটাসিয়াম এবং আয়রন। এর সব ক’টি উপাদান আপনার রক্তকে স্বাভাবিক ও সবল রাখতে কার্যকরী ভূমিকা রাখে। টমাটোতে থাকা ভিটামিন কে রক্ত পড়া এবং রক্ত জমাট বাঁধা নিয়ন্ত্রণ করে। এ ছাড়া টমেটো রক্ত সংবহনে সাহায্য করে থাকে।

৩. টমেটো আপনার হৃৎপিণ্ডকে শক্তিশালী করবে: টমেটোতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আঁশ , পটাশিয়াম এবং ভিটামিন সি সহ আরও নানা উপাদান। তাই আপনার হৃদযন্ত্র বা হার্টকে কে সুস্থ রাখতে টমেটো খাওয়ার বিকল্প নেই।

৪. আপনার দেহের হাড় মজবুত করতে: টমেটো তে রয়েছে প্রচুর ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন কে, যা  আপনার শরীরের হাড় মজবুত করে এমনকি এটা ভাঙ্গা হাড়কে জোড়া লাগায় দ্রুততার সাথে।

৫. দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়ঃ টমাটোতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ। যা আপনার চোখের জন্য অতিপ্রয়োজনীয়। টমেটো দৃষ্টিশক্তির উন্নতিতে সাহায্য করে। রোধ করে রাতকানা রোগ।

৬. চুল পড়া কমায়: টমেটোতে যেই পরিমাণ ভিটামিন এ রয়েছে, সেটা শুধু আপনার দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করবে না বরং এটা আমাদের চুল পড়া কমায় এবং চুলকে মজবুত করতে কার্যকরী ভূমিকা রাখে।

৭. কিডনিতে পাথর জমা রোধ করে: আমদের যাদের কিডনিতে সমস্যা রয়েছে, তারা একটা কাজ করতে পারেন, তারা আজ থেকেই খাদ্যতালিকায় টমেটো রাখবেন। কারণ হল, টমেটো কিডনিতে পাথর জমতে দেয় না এবং আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

৮. ওজন কমাতে টমেটো  খেতে পারেন: যাদের স্থুলতা নিয়ে চিন্তায় আছেন, তারা এই প্রাকৃতিক খাদ্য টমেটো গ্রহণ করতে পারেন। টমেটো আপনাকে ডায়েট করতে সাহায্য করবে। কারন এতে কোন ফ্যাট বা চর্বি নেই। বরং প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে টমেটো খেলে আমাদের দেহের অতিরিক্ত চর্বি দূর করে এবং দেহে অতিরিক্ত মেদ জমতে দেয় না।

৯. বাতের ব্যথা দূর করে: আমরা হয়ত অনেকেই বাতের ব্যাথাই ভুগে থাকি। তাই যাদের বাতের ব্যথা প্রচণ্ড, তারা আজ থেকে টমেটো খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করবেন, কারণ টমেটো আপনার বাতের ব্যথা অনেকাংশে দূর করতে সক্ষম।

১০. হজমশক্তি বৃদ্ধি করেঃ আপনি বদহজমে ভুগছেন? তাহলে একটা কাজ করতে পারেন, আজ থেকে আপনার খাদ্য তালিকায় টমেটো রাখুন। কারন নিয়মিত টমাটো খেলে হজমপ্রক্রিয়া ভালো থাকে। কোষ্ঠকাঠিন্য ও ডায়রিয়া অনেকাংশে রোধ করে। তাছাড়া জন্ডিস প্রতিরোধ করে এবং  আমাদের শরীর থেকে টক্সিন সরিয়ে দেয়।

১১. ত্বকের সুরক্ষায় টমেটো: আমাদের ত্বকটা আকর্ষণীয় করে তুলতে আমরা কত কিছুই না করে থাকি। টমেটো আমাদের দেহের ত্বককে ক্ষতিকর সূর্যরশ্মি, তেজস্ক্রিয় পদার্থ থেকে রক্ষা করতে পারে। আর এতে করে আমরা পেতে পারি সুন্দর ত্বক।

১২. উচ্চরক্তচাপ নিয়ন্ত্রন করতে টমেটো: যারা উচ্চরক্তচাপের (high blood pressure) সমস্যায় ভুগছেন, তারা আজ থেকে একটা করে টমেটো খেতে পারেন। কারন, তাদের জন্য টমেটো অনেক বেশি ফলদায়ক।

১৩. ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে করতে টমেটো: ডাক্তারদের গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, প্রতিদিন ২৫-৩০ গ্রাম টমেটো খেলে প্রাপ্ত বয়স্কদের ডায়াবেটিস (diabetes) নিয়ন্ত্রণ করা টা অনেক বেশি সহজ হয়ে যায়। ডাক্তাররা বলে থাকেন, প্রতিদিন পুরুষদের জন্য ২৫ গ্রাম এবং নারী দের জন্য ৩৫ গ্রাম টমেটো ফলপ্রসূ। চমৎকার ভাবে দেহের ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখতে টমেটো বিশেষ কার্যকরী।

১৪. শরীরের পানিশূন্যতা রোধে যখন টমেটো: আমাদের শরীরের পানিশূন্যতা (dehydration) রোধের জন্য টমেটো হচ্ছে অনেকটা প্রাকৃতিক ওষুধের মত । আমাদের শরীরে শক্তি যোগায় এই টমেটো।

১৫.বিষণ্ণতা রোধে টমেটো: আপনাদের শুনতে অবাক করলেও এটা পুরোটায় সত্যি। টমেটো খেলে আমাদের বিষণ্ণতা (depression)অনেকাংশে কমিয়ে দেয়। শুধু কি তাই, টমেটো আমাদের পরিপাকতন্ত্রের এবং ঘুমের সমস্যায় অনেকটা কার্যকরী।

পরিশেষেঃ

ক্যালরিতে ভরপুর এই টমাটোতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-সি। যা ঠান্ডাজনিত ঘা ভালো করে। টমেটো যেকোনো চর্মরোগ, বিশেষত স্কার্ভি রোগের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। শীতকালে ঠান্ডায় হাত, বিশেষত পায়ের গোড়ালি ফেটে যায়। ভিটামিন-সি এই ফেটে যাওয়া রোধ করে অনেকাংশে। আপনি জানেন কি? টমেটোর ভিটামিন-এ শরীরের মাংসপেশিকে করে মজবুত, দেহের ক্ষয় রোধ করে, দাঁতের গোড়াকে করে আরও শক্তিশালী, চোখের পুষ্টি জোগায়। তাই খাবারের প্লেটে প্রতিদিন টমেটো রাখুন।

সম্বন্ধে বিথী নাহার

এছাড়াও পড়ুন

৯ টি স্বাস্থ্য টিপস মানলেই স্বাস্থ্য ভালো থাকবে

৯ টি স্বাস্থ্য টিপস মানলেই স্বাস্থ্য ভালো থাকবে আমরা সুস্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য টিপস মেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen − 2 =